প্রকল্প- 'উদ্বায়ী ইউনিভার্সিটি' ( একটি 'হিউম্যান ল্যাব উদ্যোগ')

মানুষ কি শিখতে পারে? কিংবা মানুষ কি পারে কাউকে শেখাতে? মানুষের জ্ঞান আর প্রজ্ঞা দুটোই এজাম্পশন নির্ভর। আমরা বিভিন্ন বিষয়ে করা কিছু এজাম্পশনের ক্রসচেক করিমাত্র।

মানুষ আর কী করে? ভিউ এক্সচেঞ্জ, থট এক্সচেঞ্জ, কিংবা নিড এক্সচেঞ্জ। বিনিময় দিয়েই বিকাশ-বিনাশের যূথবদ্ধতা স্থাপিত হয়, যার চূড়ান্ত ফলাফল আদতে স্টোরি সেল করা। আমাদের বেঁচে থাকা, কিংবা কোনোরকমে টিকে থাকা মেকানিজমটা আবর্তিত হয় কে কত ভালোভাবে স্টোরি সেল করতে পারছি সেই পারদর্শীতাকে ভিত্তি ধরে।

৩০ বছর পর্যন্ত আমার জানাই ছিলো না জীবনের কোনো লক্ষ্য থাকতে পারে। স্কুলে পড়াকালে আমার জীবনের লক্ষ্য রচনা পড়েছি বটে, সেটা স্বদেশপ্রেম, নৌকা ভ্রমণ জাতীয় অতিচর্চিত রচনাগুলোর ভিড়ে লাপাত্তা হয়ে গিয়েছিলো। ত্রিশ পেরুনোর পর উপলব্ধি করি, জীবনের একটা লক্ষ্য থাকা উচিত। পূর্বজীবনের কার্যক্রম পর্যলোচনা করে অনুসিদ্ধান্তে উপনীত হলাম, জীবনের লক্ষ্য কানেক্ট দ্য পিপল। একটা হিউম্যান কানেক্টিভিটি চেইন তৈরি করা।
সেই তাড়না থেকেই ২০১৬ তে শুরু করি বিজনেস ফিলোসফি বিষয়ক প্রতিষ্ঠান ‘হিউম্যান ল্যাব’। BCG, Mckinsey ধরনের ম্যানেজমেন্ট কনসালটেন্সি ফার্ম বাংলাদেশে বানানো খুবই বাস্তব সম্ভাবনা। চ্যালেঞ্জ আছে, কিন্তু চ্যালেঞ্জ বা বাজি না জিততে পারলে টাইম ট্রাভেলটা বটবটি সবজির চরচরি হয়ে যাবে হয়তো। তবে হিউম্যান ল্যাব পুরোপুরি ম্যানেজমেন্ট কনসালটেন্সিও না, এটা অনেকটাই ফিলোসফি আর বিজনেসকে ইনকিউবেট করে একটা ইন্টেলেকচুয়াল এসেন্স দাঁড় করানোর মতো।

কিন্তু তখনো অন্যরকম গ্রুপে ক্রিয়েটিভ কনসালটেন্ট থাকাটাকেই বেশি প্রায়োরিটি দেয়ায় হিউম্যান ল্যাবকে ২ বছরের জন্য স্থগিত রাখতে হয়েছিলো। অতি সম্প্রতি অন্যরকম গ্রুপে আমার ৯ বছরের গল্পের শেষ অধ্যায়ের সর্বশেষ বাক্যটিও লেখা সমাপ্ত করেছি। সোম, বুধ, বৃ্হস্পতিবারে ৩ টা আলাদা কোম্পানীতে হিউম্যান ল্যাব এর পক্ষ থেকে বিজনেস ফিলোসফি সার্ভিস দিই, বাকি ৪ দিন বাসায় থাকি। এই সময়টাকে ইউটিলাইজ করতে ইতিমধ্যেই ‘হিউম্যান ল্যাব’ নামে বিজনেস ফিলোসফি বিষয়ে একটি বই লিখতে শুরু করেছি।

আমার বইগুলো লক্ষ্য করলেই দেখা যায়, যে কোনো জনরায় আমি মাত্র একটাই বই লিখি, বাকি জীবনে ওমুখো হই না আর। ফলে বিজনেস ফিলোসফি বিষয়ে এটাই হবে আমার জীবনে লেখা প্রথম ও শেষতম বই। মূল চ্যাপ্টার ৩টা- Exploration, Envelope, Expression. মূল চ্যাপ্টারের অধীনে থাকবে ছোট ছোট সাব-চ্যাপ্টার।

যদিও বলছি হিউম্যান ল্যাব থেকে সার্ভিস দিচ্ছি, আদতে এটা ব্যক্তিগত কনসালটেন্সি বা ফ্রিল্যান্সিং এর বাইরে কিছু হয়ে উঠতে পারেনি এখনো। আমি আর ৩ টা কোম্পানীতে যুক্ত হয়ে গেলেই আমার লিমিট শেষ; এক চরম আত্মকেন্দ্রিক বিত্তশালী জীবন হবে সেটা। কিন্তু বাংলাদেশের স্টার্ট আপ এবং মিডিয়াম ইন্টারপ্রাইজগুলোতে ইন্টেলেকচুয়াল ইনভেস্টমেন্ট এবং ইনভলভমেন্টের বিপুল প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। যেহেতু জাতিগতভাবেই দূরদর্শীতার অভাব আমাদের, এবং ইনস্ট্যান্ট গেইন ম্যাটারটাই সাকসেস প্যারামিটার হয়ে গেছে, বিজনেস ইনসাইট ধারণাটাই হয়তোবা চর্চিত কম। আমি হিউম্যান ল্যাবকে তখনই স্কেলেবল এবং ইনস্টিটিউশনালাইজড করতে পারবো যখন ৭-১১জন এমন কিছু মানুষের সাথে কানেক্টেড হতে পারবো যারা কথা বলে মুখে নয়, মাথায়। অন্যরকম গ্রুপে থাকাকালে ইয়াং ট্যালেন্ট নিয়ে কাজ করার অভিজ্ঞতা থেকে জানি, ৮৩% মানুষের আগ্রহই কেবল মুখে, অন্তরে নয়। জগত পাল্টানোর মহান ব্রত যেহেতু নেই, ওই ১৭% যথার্থ মানুষের সাথে থট এক্সচেঞ্জ করার সুযোগ পেলেও দারুণ চার্মিং একটা ব্যাপার হবে।

মূলত ‘ভিউ এক্সচেঞ্জ’ ফিলোসফি মাথায় রেখেই আমি একটি বায়বীয় ইউনিভার্সিটি গড়ে তোলার উদ্যোগ নিয়েছি। ডিসটেন্ট লারনিং নতুন কোনো কনসেপ্ট নয়, তবে ডিসটেন্ট মেন্টরশিপ বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে কিছুটা অপ্রচলিত হতে পারে, আবার নাও পারে। নিশ্চিত জানি না।

বায়বীয় ইউনিভার্সিটি প্রকল্পে আমি সপ্তাহের শুক্রবারটি ডেডিকেট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বায়বীয় ইউনিভার্সিটি পুরোটাই কাস্টমাইজড, এর কোনো কনটেন্ট ম্যাটেরিয়াল নেই, যে যেরকম মানুষ সেই অনুসারে তার সিলেবাস নির্ধারিত হবে। গ্রাজুয়েশনের ব্যাপ্তি ১৩ সপ্তাহ, পোস্ট গ্রাজুয়েশন ৫ সপ্তাহ, স্পেশালাইজড রিসার্স ১৯ সপ্তাহ।
বায়বীয় ইউনিভার্সিটিতে যে কোর্সগুলো নেয়ার সুযোগ থাকছে
– ক্রিটিকাল থিংকিং
– পর্যবেক্ষণ
– বিহেভিয়ার এনালাইসিস
– ইন্টারপ্রেটেশন
– এনালিটিকাল রাইটিং
-ফিকশন রাইটিং
– সেলফ ইভালুয়েশন
– ক্রিটিক
– আনকনভেনশনাল মাইন্ডসেট
– ইউনিকনেস ইলিউশন
– ডিসিসন মেকিং

যে কোনো বয়সের মানুষ বায়বীয় ইউনিভার্সিটিতে রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন।

কোর্স ফি মাত্র ২ টি টিব্যাগ!

গ্রাজুয়েশন পর্যায়ে সর্বনিম্ন ৩ টি থেকে সর্বোচ্চ ৫ টি কোর্স নেয়া যাবে। পোস্ট গ্রাজুয়েশনে সর্বোচ্চ ৩টি এবং স্পেশালাইজড রিসার্স মাত্র ১ টি বিষয়।

রেজিস্ট্রেশন করলে প্রতি শুক্রবারে আপনাকে এসাইনমেন্ট দেয়া হবে, পরবর্তী শুক্রবারের আগ এসাইনমেন্টটি আপনি ইমেইল করে দেবেন। সেটার এসেসমেন্ট শেষে নতুন এসাইনমেন্ট। এভাবেই এসেসমেন্ট এবং এসাইনমেন্টের মধ্য দিয়ে আপনার একটি জার্নির গল্প তৈরি হয়ে যাবে।প্রয়োজনবোধে বাস্তবজীবনেও দেখা হতে পারে।

রেজিস্ট্রেশনের নিয়ম: যে কোর্সগুলো নিতে চান বাছাই করে আপনার লক্ষ্য- উদ্দেশ্য ব্যাখ্যা করে একটি সিনোপসিস ইমেইল করুন himalay777@gmail.com এ। যদি নির্বাচিত হন, ফিরতি ইমেইলেই প্রাথমিক কোর্স গাইডলাইন পেয়ে যাবেন। নির্বাচিত না হলে তার কারণও ব্যাখ্যা করা হবে।

ইউনিভার্সিটি বায়বীয়, কিন্তু আমি, আপনি, আমরা নিরেট বাস্তব।
Presence is an Overrated term
Detachment often emits recursive charm
Nowhere we march yet merge memory’s plot
No if else no and/or Reveal your thought!!!

Share your vote!


Do you like this post?
  • Fascinated
  • Happy
  • Sad
  • Angry
  • Bored
  • Afraid