নামহীন-দামবিহীন বইয়ের পাঠ প্রতিক্রিয়া (আবিদ মাহমুদ আদনান)

বইয়ের যেখানে দাম লেখা থাকে ওইখানে লেখা-

আত্মিক মুল্য : একটি পাঠ প্রতিক্রিয়া এবং অন্তত ১১ টি প্রশ্ন।
আর্থিক মুল্য : পাঠকের বোধই হোক শ্রেষ্ঠ বিবেচক ।

বইয়ের হার্ড কাভারের উপর কোন নাম লেখা নাই।
বইটা পাওয়ার জন্যে লেখক কে মেইল করে জানাতে হয়েছে কেন এই বই টা পড়তে চাই ।
আর দাম হিসেবে আমি আমি যা দিয়েছি, তা-ই সই।

সম্পুর্ন নামহীন এবং নির্দিস্ট কোণ দামহীন এই বইটার লেখক মাহফুজ সিদ্দিকী হিমালয় ভাই । উনার পরিচয় এখন পর্যন্ত আমি যার যার কাছে গল্প করেছি , সবার কাছে গল্পটা কমবেশি একি রকম ছিল –
আমার জীবনে ইম্প্যাক্ট রাখা প্রধান তিনজন মানুশের একজন।
হিমালয় ভাই ইন্টেন্সিটিতে বিশ্বাস করেন, সেই জায়গা থেকে উনি সফল। কোণরকম পুর্ব পরিচয় ছাড়া, শুধু মাত্র একটা দুইটা ফেসবুক পোস্টের কল্যানে কোন মানুশের জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়ার মত ইন্টেন্সিভ ব্যাপার স্যাপার আমার নজিরে অন্তত আর নাই।
আমার যারা আপন মানুশ, তারা আমাকে কতটুকু চিনে আমি জানিনা, কিন্তু নিজেকে আমি আর সবার চেয়ে বেশি চিনি। সেই চেনাজানা থেকেই আমি প্রচন্ডরকম ভাবে জানতাম, আমার আসলে কোনদিন চাকরী বাকরি করা হবেনা। কোনদিন ই না।
যে কারনে আমার এখন পর্যন্ত কোণ সিভি নাই। সার্টিফিকেটর অরিজিনাল কপি পচতেছে ফিজিক্স ডিপার্টমেন্টের ভারী, কালো, কোনো পুরোণো আলমারিতে ।

কিন্তু চাকরি কিন্তু আমি করতেছি এখন । প্রায় ৯ মাস হয়ে গেল চাকরীর বয়স।
মানুশ চাকরি করে জীবিকার তাগিদে, আইডেনটিটির খোজে, কিংবা হয়ত প্রচলিত সমাজবদ্ধতার ফাদে পড়েই, আমি চাকরী করতেছি একটা মানুশের দেয়া চাকরির বিজ্ঞাপনের এসাইন্টমেন্টের মোহে পড়ে!
প্রচন্ড আশ্চর্য্য লাগে আমার কাছে ব্যাপারটা।
এই আশ্চর্য্যের রহস্য ভেদ করার জন্যেই আসলে হিমালয় ভাইয়ের নামহীন দামহীণ বইটা পড়া।

রহস্য ভেদ হয়নি, আরো ঘন হয়ে গেছে।

হয়তো আমার ডিটেইলে মনোনিবেশের অনীহাই দায়ী এর জন্যে, কিংবা সারাজীবন ধরে স্রেফ বিনোদনের স্বার্থেই পড়ার যে অভ্যাস, সেটা ।
যেটাই হোক আমার জীবনে পড়া সবচেয়ে অন্যরকম বই এটা । বোধের জায়গা থেকে।

কিন্তু কী কারনে সেটা এখনো নিশ্চিত না।
এরকম সেলফ কনভার্সেশন এপ্রোচে লেখা আর কোণ বই আগে পড়িনাই সেজন্যে ?
নাকী চিন্তার এই লেভেলের ফ্রীকশনলেশ কনভার্শন দেখে?

বইটা পড়ার সময় আমার সবচেয়ে বেশি যেই জিনিসটা হইছে, সেটা হচ্ছে, হয়ত পড়ার মাঝখানে কোণ এক পাতায় মাথায় কোন একটা প্রশ্ন জাগছে , পরের পাতায় গিয়েই দেখি
ঠিক সেই প্রশ্নটাই করা, উত্তর সহ! একাধিকবার হইছে এই ঘটনা ।

আবার এমনো হইছে, অফিসের ডেস্কে বসে বইটা পড়তেছি, পাশ থেকে আমার এক কলিগের একটা মন্তব্য শুনে হঠাট বুকের রক্ত ছল্কে উঠছে,

আদনান, এইভাবে পইড়োনা এই সাইকো থ্রিলার … মাথা খারাপ হয়ে যাবে !
ভয় পেয়ে এক সেকেন্ডর একটা পজ নিছি, হায় হায় সত্যিই পাগল হয়ে যাব নাতো ?
যদিও পরমুহুর্তেই আবার ডুবে গেছি।
যথার্থ পাঠকের জন্যে এটা হয়তো একদিক দিয়ে সাইকো থ্রিলার ই বটে। চিন্তাকে যদি কেউ কাপড় খুলে প্রকাশ করে, এরচেয়ে সাইকো ব্যাপার আর কী হতে পারে?

সংখ্যা নিয়ে অবসেশন আছে হিমালয় ভাইয়ের । আগে থেকেই জানতাম ব্যাপারটা। মানুশকে সংখ্যা দিয়ে ইন্টারপ্রেট করেন।
এই ব্যাপারটা নিয়ে কৌতুহল ছিল। নিবারন হয়নি।
পুরা বই জুড়েই সংখ্যা। সেলফ কনভার্সেশনের প্রধান ক্যারেক্টার দুইটাই সম্পুর্ন শুধু সংখ্যার আড়াল দিয়েই প্রকাশ করা। বইয়ের একেকটা চ্যাপ্টারের শিরোনাম ও একেকটা সংখ্যা। যারা আবার আসলে একেক্টা মানুষ নির্দেশ করছে। কিন্তু এই সংখ্যার মাহাত্য কী ? হিমালয় ভাইয়ের অভিনব ইন্টারপ্রেটশন— এই পর্যন্তই? নাকী প্রডিজি হিমেলের মেন্টাল মাল্টিপ্লিকেশন পাওয়ার, মনে মনে হিসাব করেই ক্যাল্কুলেটরের আগে সঙ্খ্যার বর্গমুল, পঞ্চমুল বলে দেয়ার আরো ডিপ কানেকশন আছে কোথাও?

অন্যরকম গ্রুপ , মানে আমি যেখানে চাকরি করি, সেখানে ভিশনে আর কালচারে যে গরমিল, সেটার আরো একটু ইতিবৃত্ত জানারর বাসনা ছিল, হিমালয় ভাই কার্পন্য করেন নি। এই জিনিস্টা পড়ার আরাম দিছে। অন্যরকম গ্রুপ সম্পর্কে আগ্রহী পাঠকের জন্যে বেশ লোভনীয় রসদ। যদিও প্রশ্ন জাগে, এত খোলাখুলি বলার প্রয়োজন কী আসলেই ছিলো ?
চিন্তায় মানুশ ভনিতা করেনা দেখে? নাকি হিমালয় ভাইয়ের মধ্যেই ভান নাই ?

এইরকম অনেক খুটিনাটি কৌতুহল আর আগ্রহ , ছিল বইটা পড়ার জন্যে । কিন্তু সবকিছু ছাপিয়ে যদি বলি , হিমালয় ভাই কে বোঝার একটা আগ্রহ ছিল ।

একজন মানুশ একটা গ্রুপ অফ কোম্পানির চাকরির বিজ্ঞাপনে এসাইনমেন্ট দিচ্ছে ব্যাং নিয়ে গল্প লেখা। ইন্টারভিউ বোর্ডে সিভি ছুড়ে ফেলে দিয়ে বলছে ১৩ পৃসঠার অটোবায়োগ্রাফি লিখতে..

এই লোক আসলো কোত্থেকে?

(চলবে … )

বইটা পাওয়ার প্রক্রিয়া সম্পর্কে যদি কারো আগ্রহ জাগে তাদের জন্যে

বইটা কেন পড়তে চান এই কারন জানিয়ে himalay777@gmail.com মেইল করতে হবে.
দামের ব্যাপারটা তো শুরুতেই বলছি, যে যা দিবে তা-ই সই।

সফট কপি বা হার্ড যেকোণ ফরম্যাটেই নেয়া যাবে ।
সফট কপি pdf, আর হার্ড কপি – অফসেট কাগজের ছাপা ৬১৯ পৃষ্ঠার হার্ড কাভার বই।

Share your vote!


Do you like this post?
  • Fascinated
  • Happy
  • Sad
  • Angry
  • Bored
  • Afraid